৪ঠা জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার,রাত ৮:৫৫

খালেদা জিয়ার কিছু হলে দায় সরকারকে নিতে হবে

প্রকাশিত: জুন ১৩, ২০২২

  • শেয়ার করুন

 

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে বিদেশে চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে   দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, চিকিৎসকরা বলছেন তার যে ধরনের চিকিৎসা দরকার তা বাংলাদেশে নেই। বিদেশে চিকিৎসার ব্যবস্থা আছে। কিন্তু তার কোনো দুর্ঘটনা ঘটে তাহলে এর দায় সরকারকে নিতে হবে। দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে বিদেশে পাঠানোর পাশাপাশি তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে গতকাল দুপুরে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত সমাবেশে মির্জা ফখরুল আরও বলেন, সরকার পালানোর সময় পাবে না। এখনো সময় আছে, এখনো বাঁচতে পারবেন, এরপর আর পালাবার সময় পাবেন না। সব রাজনৈতিক দল ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে। রাজনৈতিক সংগঠন ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে। দেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে। দুর্বার গণআন্দোলন শুরু হলে এ সরকারের পতন ঘটিয়ে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে। গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনা হবে।

বিজ্ঞাপন

সত্যিকার অর্থেই জনগণের কল্যাণের জন্য সরকার গঠন করা হবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, খালেদা জিয়াকে আটক রাখার মূল কারণ তাকে রাজনীতি থেকে দূরে সরিয়ে দেয়া। এজন্যই পরিকল্পিতভাবে বিচার বিভাগকে নিয়ন্ত্রণ করে, দুদককে নিয়ন্ত্রণ করে খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়ে আটক করে রাখা হয়েছে। বেগম খালেদা জিয়ার জীবন রক্ষার দাবিতে এই কর্মসূচি। তিনি শুধু একটি দলের প্রধান নন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী নন, তিনি আজীবন সংগ্রাম করেছেন।  সরকারের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, তাদের সলিমুদ্দিন, কলিমুদ্দিন, সাজাপ্রাপ্তরা এয়ার এম্বুলেন্সে করে বিদেশে চিকিৎসা নিতে যাচ্ছে। অথচ মিথ্যা মামলায় সাজা দেয়া বেগম খালেদা জিয়াকে তারা বিদেশে যেতে দিচ্ছে না। এর কারণ সরকার তাকে ভয় পায়। তিনি যদি রাস্তায় নামে তাহলে হেমিলিয়নের বাঁশিওয়ালার মতো মানুষের ঢল নেমে আসবে।

বাজেটের বিষয়ে ফখরুল বলেন, বাজেটে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণের তো কোনো ব্যবস্থা নেনই নি, বরং কেমনে বাড়ানো যায় সেটা করেছেন। শিক্ষা-স্বাস্থ্যে বরাদ্দ বাড়েনি। অথচ করোনাকালে স্বাস্থ্যখাতের বেহাল দশা ফুটে উঠেছে। পাচার করা টাকা ফেরত আনার সুযোগের সমালোচনা করে ফখরুল বলেন, এতদিন টাকা পাচার করেছেন। কানাডা, অস্ট্র্রেলিয়া, ইংল্যান্ডে, বেগম পাড়ায় বাড়ি করেছেন এখন সেগুলো জায়েজ করতে কর দিয়ে টাকা ফেরত আনার কথা বলেছেন। ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি’র আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব আমিনুল হক ও দক্ষিণের সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনুর যৌথ সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, হাবিবুর রহমান হাবিব, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, আব্দুস সালাম আজাদ, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপু, বিএনপি নেতা নাজিম উদ্দিন আলম, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, যুবদলের সাবেক সভাপতি সাইফুল আলম নিরব, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল প্রমুখ।

  • শেয়ার করুন