১৫ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার,রাত ৯:২১

৭.৫ টাকার কেনা ডিম বিক্রি হচ্ছে ১৩ টাকায়, দাম বাড়াচ্ছে সিন্ডিকেট

প্রকাশিত: জুন ২৯, ২০২৪

  • শেয়ার করুন

 

বর্তমান বাজারে ভোক্তা পর্যায়ে ডিম ও ব্রয়লার মুরগির দাম দ্বিগুণ। খামার পর্যায়ে ডিম প্রতি পিস সাড়ে সাত টাকা বিক্রি হলেও খুচরা বাজারে হয় তেরো টাকা। খামারি পর্যায়ে যে মুরগি ১৩০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে, তা খুচরা বাজারে ২০০ টাকা। ঈদের সময় কিছুটা স্থিতিশীল থাকলেও ফের ডিম ও মুরগির দাম বাড়ছে।

রাজধানীর বাজারে লাফিয়ে বাড়ছে ডিম ও মুরগির দাম। সাধারণত কোরবানির সময় ডিম ও মুরগির দাম কম থাকে; তবে এবারের চিত্র ভিন্ন। হঠাৎ করে ডিম ও ব্রয়লার মুরগির দাম অস্বাভাবিক বাড়ায় বিপাকে পড়েছেন স্বল্প আয়ের মানুষ। মূল্যবৃদ্ধির পেছনে ব্যবসায়ীরা পোলট্রি অ্যাসোসিয়েশনকে দায়ী করলেও তাদের অভিযোগ অন্যদের বিরুদ্ধে। তারা বলছেন, তেজগাঁও ডিম সমিতি সিন্ডিকেট করে বাড়াচ্ছে ডিম ও মুরগির দাম।

রাজধানীর হাতিরপুল খুচরা বাজারের একটি দোকানে এক হালি ডিম কিনতে চাইলে দোকানি ৫২ টাকা মূল্য দাবি করেন। এ হিসাবে ডজন পড়ে ১৫৬ টাকা। তবে ওই দোকানেই ডজন বিক্রি হচ্ছে ১৫৫ টাকায়। এদিকে খুচরা বাজারগুলোতে ব্রয়লার মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০০ থেকে ২১০ টাকা। নিউমার্কেট কাঁচাবাজার, নয়াবাজার, হাতিরপুল বাজারসহ কয়েকটি বাজারেও একই দামে ডিম বিক্রি করতে দেখা যায়।

প্রান্তিক পর্যায়ের ডিমের খামারিদের অভিযোগ, যে দামে ডিম ও মুরগি বিক্রি হচ্ছে, এর সুফল তারা ভোগ করছেন না। ডিমের দাম বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন ডিম ব্যবসায়ী সমিতির দিকে অভিযোগের আঙুল তোলেন প্রান্তিক খামারিরা। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করে বিভিন্ন বাজারের ডিম ব্যবসায়ীরা বলছেন, মধ্যস্বত্বভোগীদের কারণে বাড়ছে দাম।

রাজধানীর সবচেয়ে বড় পাইকারি বাজার কাপ্তানবাজার। বৃহস্পতিবার ভোরে কাপ্তানবাজার ঘুরে দেখা যায়, দেশের প্রান্তিক অঞ্চল থেকে ট্রাক বোঝাই করে মুরগি ও ডিম আসছে। এ সময় কাপ্তানবাজারের কয়েকজন পাইকারি ডিম ও মুরগি ব্যবসায়ীর সঙ্গে কথা হয় এ প্রতিবেদকের।

পাইকারি ডিম ব্যবসায়ী মেসার্স জহিরুল ট্রেডার্সের ম্যানেজার ওয়াসিম উল্লাহ বলেন, আজকের ডিমের চাহিদার তুলনায় আমদানি কম হলে দাম বাড়বে। আবার চাহিদার তুলনায় আমদানি বেশি হলে দাম কমবে। রাজধানীর বাজারে ডিমের দাম নির্ধারণ করে বাংলাদেশ পোলট্রি অ্যাসোসিয়েশন, ডিম সমিতি। তারা প্রতিদিন ভোররাতে আমাদের ফোনের মাধ্যমে জানিয়ে দেয় ওইদিন প্রতি পিস ডিমের দাম কত হবে। এতে আমরা যারা প্রতিদিনই খামারিদের কাছ থেকে ডিম কিনি এবং রাজধানীর বাজারে পাইকারি বিক্রি করি, তাদের কখনো লাভ আবার কখনো লোকসান হয়।

  • শেয়ার করুন